ঢাকা   ২৫শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ । ১২ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চট্রগ্রামের ফটিকছড়িতে তারাবির নামাজ শেষে মুসল্লিকে কুপিয়ে জখম

প্রতিবেদকের নাম
  • প্রকাশিত : বুধবার, মার্চ ২০, ২০২৪
  • 32 শেয়ার

তালহা চৌধুরী রুদ্র, ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি:

ফটিকছড়িতে মসজিদ থেকে তারাবির নামাজ পড়ে বের হওয়ার সময় মোহাম্মদ আজম খান (৫৫) নামে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে মারাত্মকভাবে জখম করেছে স্থানীয় কয়েক দুর্বৃত্ত। মসজিদের জায়গার বিরোধের জের ধরে এই ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।

শুক্রবার ফটিকছড়ি পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের পরাণ চৌধুরী মসজিদে এই ঘটনা ঘটে। আহত আজম খান স্থানীয় মরহুম মোহাম্মদ ইসলামের তৃতীয় পুত্র। বর্তমানে তিনি চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। জানা যায়, শুক্রবার রাত নিজ বাড়ি মসজিদ থেকে তারাবির নামাজ শেষে বের হতেই স্থানীয় নুরুল আজম প্রকাশ টিন আজম, রুবেল, রুবেলের ভাগিনা মোস্তাফা এবং নাঈমের নেতৃত্বে ৫-৭ জন ব্যক্তি রাম দা, লোহার রড ও বিভিন্ন ধারালো অস্ত্র নিয়ে আজমের ওপর অতর্কিত হামলা করে। তারা আজমকে মাথায় মারাত্মকভাবে কুপিয়ে জখম করে। পরে অন্য মুসল্লিরা এগিয়ে আসলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়।

এদিকে স্থানীয়রা তাৎক্ষণিকভাবে আজম খানকে উদ্ধার করে ফটিকছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। পরে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। আজম খান বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, স্থানীয় নুরুল আজম প্রকাশ টিন আজম এলাকার মসজিদের কিছু জায়গা নিজের দখলে রেখেছেন বলে অভিযোগ আছে। এটা নিয়ে তার সঙ্গে আজম খানসহ মসজিদ কমিটির লোকজনের বিরোধ চলছিল। এই বিরোধের জের ধরেই মূলত নুরুল আজমের নেতৃত্বে এই হামলা চালানো হয়েছে।

এ দিকে এ বিষয়ে জানতে চাইলে ফটিকছড়ি থানার সেকেন্ড অফিসার নাজমুল আলম বলেন, এরকম একটা ঘটনার বিষয়ে আমরা অবগত আছি। তবে থানায় ভিকটিমের কেউ লিখিত অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ দিলেই ব্যবস্থা নেয়া হবে বলা হয়েছে।

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ
© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২৪